বাংলাদেশ সেনাবাহিনী শান্তিরক্ষা মিশনে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে: সেনাপ্রধান

  • ১৮-ফেব্রুয়ারী-২০২০ ১২:২৭ অপরাহ্ন
Ads

:: টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ::

সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেছেন,যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সেনাবাহিনীকে আধুনিকায়ন করা হচ্ছে।বাংলাদেশ সেনাবাহিনী শান্তিরক্ষা মিশনে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে।দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও যেকোনো আগ্রসান রুখতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সর্বদা প্রস্তুত ও তার সক্ষমতা রয়েছে ।সেনাবাহিনীর অবস্থান আরও সুদৃঢ় হচ্ছে।আমরা আমাদের ভূমি কোনো সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করতে দেবো না।

মঙ্গলবার সকালে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল শহীদ সালাউদ্দিন সেনানিবাসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৬টি ইউনিট এর রেজিমেন্টাল কালার প্রদান অনুষ্ঠানে শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

রেজিমেন্টাল কালার প্রাপ্ত ইউনিটসমুহকে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি আরও বলেন, রেজিমেন্টাল কালার প্রাপ্তি যে কোন ইউনিটের জন্য একটি বিরল সম্মান এবং পবিত্র আমানত। কর্মদক্ষতা,কঠোর পরিশ্রম ও কর্তব্যনিষ্ঠার স্বীকৃতিস্বরূপ প্রাপ্ত পতাকার মর্যাদা রক্ষা এবং দেশমাতৃকার যেকোন প্রয়োজনে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে ইউনিটসমূহকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেন।

এর আগে, সেনাপ্রধান প্যারেড গ্রাউন্ডে উপস্থিত হলে ১৯ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মিজানুর রহমান শামীম তাকে অভ্যর্থনা জানান।

এরপর,প্যারেড কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্নেল খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯ পদাতিক ডিভিশনের একটি সম্মিলিত চৌকস দল কুচকাওয়াজ প্রদর্শন এবং সেনাপ্রধানকে সালাম প্রদান করেন।অনুষ্ঠানে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক শহীদুল ইসলাম,পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়সহ উর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তা ও সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।উল্লেখ্য,গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক ইউনিট সমূহ কর্তৃক সেনাবাহিনী তথা দেশমাতৃকার সেবায় বিশেষ অবদানের জন্য রেজিমেন্টাল কালার প্রদান করা হয়।ফলে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৪ ফিল্ড রিজিমেন্ট আর্টিলারি,১১ আর ই ব্যাটালিয়ন,১৮ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়ন,৩ সিগন্যাল ব্যাটালিয়ন, ১৭ বীর এবং ১৯ বীর এই কালার প্যারেডে অংশগ্রহণ করে।

Ads
Ads