মোংলায় অনৈতিক কাজে বাঁধা দেয়ায় স্ত্রী ও সন্তানের হাতে যুবলীগ নেতা খুন

  • ৯-মার্চ-২০২০ ০৩:৫৭ অপরাহ্ন
Ads

:: মোংলা প্রতিনিধি ::

স্ত্রীর অনৈতিক কাজে বাঁধা দেয়ায় নিজ ছেলে ও স্ত্রীর হাতে খুন হতে হয়েছেন মোংলায় যুবলীগ নেতা তরিকুল ইসলামের। ঘটনার ৪৮ ঘন্টার পর সোমবার সকালে পুত্রবধু হিরা ও নাতি হিরকসহ ৫ জন অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এনে মোংলা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের মা মোসাঃ সেলিনা বেগম খোদেজা। ঘটনার পর পরই অভিযুক্ত আসামী মা-ছেলে পলাতক থাকায় এখন পর্যন্ত কাউকেই আটক করতে পারেনি পুলিশ। এ ব্যাপারে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

মোংলা থানার দায়ের করা মামলা ও স্বজনরা জানায়, নিহত যুলীগ নেতা মোঃ তরিকুল ইসলাম (৪০) শহরতলীর পৌরসভাধীন বটতলার মুন্সিপাড়া এলাকার নিজ বাড়ীতে স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে একটি বাসায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছিলেন। স্ত্রীর অনৈতিক কাজে বাঁধা দেয়ায় স্বামী তরিকুলের সাথে প্রায়ই তাদের মধ্যে বাক বিতন্ডা চলে আসছিল। যা নিয়ে বেশ কয়েকবার সালিশ-বৈঠকও হয়েছে।

এর আগে গত বছর দুইবার তরিকুলকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে স্ত্রী হিরা বেগম তার উপর হামলা করেছিল বলে জানায় নিহতের মা সেলিনা বেগম। এক পর্যায়ে ঘটনার দিন শুক্রবার গভীর রাতে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী স্ত্রী হীরা বেগম ও তাদের ছেলে তৌফিক হাসান দিলু ওরফে হিরক (১৫) সহ আরো ২/৩জন মিলে ছুরিকাঘাত করে তরিকুলকে। এসময় তাদের হামলায় রক্তাক্ত জখম হয় তরিকুল। পরে সে জীবন বাচাতে ঘর থেকে বেড়িয়ে চিৎকার দিলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য প্রথমে মোংলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে রাত ৩টার দিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে শনিবার সকাল ৯টার দিকে তরিকুলের মৃত্যু হয়।

ঘটনার পর থেকে স্ত্রী হীরা ও তার সন্তান হিরক পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় আজ সোমবার মোংলা থানায় নিহতের মা মোসাম্মাৎ সেলিনা বেগম ওরফে খোদেজা পুত্রবধু হিরা, নাতি হিরকসহ অজ্ঞাতনামা ৫জনকে আসামী করে একটি হত্যা থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোংলা থানার সেকেন্ড অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম জানান, এ হত্যাকান্ডের পর পরই আসামীরা পলাতক রয়েছে। তবে এ হত্যার সাথে জড়িত মা ও ছেলেসহ অন্যান্য অভিযুক্তদের গ্রেফতারের জন্য জোর পুলিশী তৎপরতা চলছে বলেও জানায় এ কর্মকর্তা।

Ads
Ads