ঝিকরগাছার গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নকে উন্নয়নের মডেল করতে চান চেয়ারম্যান বিল্টু

  • ১১-Aug-২০১৮ ০৬:০০ অপরাহ্ন
Ads

ঝিকরগাছার গঙ্গানন্দপুর ইউনিনকে উন্নয়নের মডেল করতে চান চেয়ারম্যান বদরউদ্দীন বিল্টু। উপজেলার সীমান্তবর্তী গঙ্গান্দপুর ইউনিয়নটি ইতোমধ্যে শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওয়াতায় এসেছে। গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের পাশাপাশি যোগাযোগ ব্যবস্থায় ঘটেছে আমুল পরিবর্তন। তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও দারিদ্র্য বিমোচন কর্মসূচি বাস্তবায়নে সাফল্যের একধাপ এগিয়েছে ইউনিয়নটি।

১৬টি  গ্রাম ও ৯টি ওয়ার্ড মিলিয়ে ৪৫ হাজার জনঅধ্যুষিত ইউনিয়নটিতে ভোটার রয়েছে, ২১ হাজার। ঝিকরগাছা-চৌগাছা সংসদীয় আসনের ২২টি ইউনিয়নের মধ্যে ঝিকরগাছার গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নটি প্রথম শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় আসে।

সড়ক উন্নয়নের ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব অগ্রগতি ঘটেছে বলে দাবী করেন চেয়ারম্যান বদরউদ্দীন বিল্টু। তিনি ইউনিয়নের সার্বিক উন্নয়নের চিত্রতুলে ধরে তাঁর ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে বলেন, ছুটিপুর বাজার সড়কটি সীমান্তবর্তী কাশিপুর শহীদ নূর মোহাম্মদ স্মৃতিসৌধ পর্যন্ত যুক্ত হয়েছে। সীমান্তবর্তী ব্যাংদাহ-গুলবাগপুর ভায়া ঘোড়দাহ সড়ক নির্মান ও ছুটিপুর বাজার কপোতাক্ষনদ অপ্রশস্ত সেতুটি সম্প্রসারণ ও সংস্কার শুরু হতে যাচ্ছে। এব্যাপারে চৌগাছা-ঝিকরগাছা আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জননেতা অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির মহোদয় আমাকে আশ্বস্ত করেছেন বলেন চেয়ারম্যান।

আটুলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে ধুলিয়ানী (চৌগাছা অংশে)ব্রীজ পর্যন্ত সড়ক নির্মান, গঙ্গানন্দপুর-সাড়াতলা সংযোগ সড়কটি শার্শা উপজেলার  সাথে যুক্ত হয়েছে। কাগমারি হতে জিউলীগাছা সংযোগ শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত ও কৃষ্ণচন্দ্রপুর হতে গৌরসুটি জোড়া ব্রীজ পাকা সড়ক উল্লেখযোগ্য। 

শিক্ষাক্ষেত্রে অগ্রগতির কথা জানিয়ে চেয়ারম্যান বিল্টু বলেন, গঙ্গান্দপুর ডিগ্রীকলেজ, গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ছুটিপুর বালিকা বিদ্যালয়, গৌরসুটি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, আটুলিয়া আলিমুল কোরআন দাখিল মাদ্রাসা, বিশহরী দাখিল মাদ্রাসার অবকাঠামোসহ সার্বিক শিক্ষার মানোন্নয়ন ও কার্যক্রম সন্তোষজনক। ব্যাংদাহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন চারতলা ভবন নির্মাণ শুরুর প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। ইতোমধ্যে টেন্ডার সম্পন্ন হয়েছে বলে জানান তিনি।

মৎস্য সম্পদে ব্যাপক উন্নয়ন ও সাফল্যের কথা বলতে গিয়ে চেয়ারম্যান বদরউদ্দীন বিল্টু বলেন, এতদাঞ্চলের সর্ববৃহৎ বিল বনমান্দারসহ আচড়ার বিল, মৌতার বাওড়, নলডুবুরির বিল ও ১৭ একর জলাভূমির মুক্তিযোদ্ধা মৎস্য খামার আমাদের জাতীয় মৎস্য সম্পদ উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। মাছ রপ্তানিতে উপজেলার মধ্যে তাঁর ইউনিয়ন এগিয়ে রয়েছে দাবী করেন তিনি। তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তিখাতে ই-সেবার মাধ্যমে জন্মনিবন্ধন, মৃত্যু সনদ, যাবতীয় শিক্ষার আবেদন ফরম, নাগরিক সনদ, ওয়ারিশ কায়েম সনদ, কমিউনিটি ট্রেনিংসহ এশিয়া ব্যাংকিং সেবা প্রদান করা হচ্ছে। এছাড়া নিরাপদ খাদ্য বেষ্টনির আওতায় বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী,ভিজিডি, ভিজিএফ, মাতৃত্বকালিন ভাতাসহ হরিজন দলিতসম্প্রদায়ের ভাতা প্রদান কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। 

কৃষি ও মৎস সম্পদের উর্বর ভূমি গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নে অর্থকরী ফসল ধান ও পাটের পাশাপাশি ব্যাপক সবজি উৎপাদন হয়ে থাকে।

চেয়ারম্যান বলেন, তাঁর ইউনিয়ন থেকে প্রতিদিন সিম, পটল, বেগুনসহ অন্তত ৩ ট্রাক দেশের বিভিন্ন মোকামে রপ্তানি হয়ে থাকে।

Ads
Ads