সরিষাবাড়ীতে পিংনা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কাবিটার চাল আত্মসাতের অভিযোগ

  • ১৮-Aug-২০১৮ ০৬:০০ অপরাহ্ন
Ads

জামালপুরের সরিষবাড়ির পিংনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেনের বিরুদ্ধে একটি রাস্তা সংস্কারের নামে সাড়ে ৭ মেট্রিক চাল আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কাজ না করেই ভুয়া মাস্টাররোল দাখিল করে এই চাল আত্মসাত করেছে বলে অভিযোগ স্থানীয় এলাকাবাসীদের।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, পিংনা ইউনিয়নের বারইপটল পালপাড়া ভাঙ্গা হতে বাদলের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা সংস্কারের জন্য উপজেলা প্রশাসন কাবিটা দ্বিতীয় পর্যায়ে বরাদ্দ থেকে গত ৮ মে সাড়ে ৭ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেয়। এই রাস্তার সংস্কারের কাজ  খোঁজ নেয়ার জন্য সরেজমিনে বারইপটল পালপাড়া গেলে রাস্তায় কাজের কোন চিহ্ন পাওয়ায় যায়নি।

এলাকার বাসিন্দা নুরুল ইসলাম ও শঙ্কর চন্দ্র পালসহ উপস্থিত ২০/২৫ জন গ্রামবাসী জানান, গত ৪ বছরের মধ্যে এই মাটি রাস্তাটির কোন কাজ না হওয়ায় খানা-খন্দকের সৃষ্টি হয়ে চলাচলে একেবারেই অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এই প্রকল্পের সভাপতি করা হয়েছে ওই এলাকার বাসিন্দা পিংনা ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মীনা রানীকে।

তার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, রাস্তার কাজে বিষয়ে চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন জানেন। আমি কিছুই জানি না। তবে রাস্তার কাজের কথা বলে তার কাছ থেকে প্রকল্পের স্বাক্ষর নিয়ে চাল উত্তোলন করেছে। কাজ হবে কি না তা তিনিই ভাল জানেন। আমি এর চেয়ে বেশী কিছুই জানি না।

এ বিষয়ে সরিষাবাড়ি উপজেলা প্রকল্প বাস্তাবায়ন কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে তিনি সরিষাবাড়ি উপজেলার দায়িত্ব পালন করছেন। রাস্তার কাজ না করে কাবিখার চাল উত্তোলন করা হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইউপি চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেনের সাথে এ ব্যাপারে কথা হলে তিনি জানান, সাংবাদিকরা শুধু আমার দিকেই খেয়াল করে, আরো সবাই এর চেয়ে বেশী অনিয়ম ও দুর্নীতি করছে তা কেউ দেখেনা। সরিষাবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইফুল ইসলাম জানান, সত্যিই যদি এসব দুর্নীতিতে ঐ চেয়ারম্যান জড়িত থেকে থাকে তবে অভিযোগের ভিত্তিতে তার বিরোদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে

Ads
Ads